ঢাকা, বুধবার ১৬ আগস্ট ২০১৭  ,
২১:৩২:৩৮ ফেব্রুয়ারি  ১৫, ২০১৭ - বিভাগ: বাংলাদেশ


পৃথক স্থানে ৩ হত্যা

ডেস্ক রিপোর্ট

পৃথক স্থানে ৩ জনকে হত্যা করা হয়েছে। গতকাল বুধবার রাজধানীসহ কুমিল্লা ও হবিগঞ্জে এই ঘটনা ঘটে। রাজধানীর মালিবাগে স্ত্রীর ইটের আঘাতে ওহেদুল ইসলাম (৬০) নামে একজনকে হত্যা করা হয়েছে। গতকাল দুপুরে মালিবাগ আবুজর গিফারী কলেজের পাশের গলিতে অবস্থিত একটি ৫ তলা ভবনে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনাস্থলে থেকে স্ত্রী মৌসুমী ইসলাম নাহারকে আটক করেছে শাহজাহানপুর থানা পুলিশ। শাহজাহানপুর থানার ওসি (তদন্ত) আবদুল মাবুদ জানান, সকালে তাদের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। পরে মৌসুমী ইট দিয়ে ওহেদুলকে আঘাত করলে সেখানেই তার মৃত্যু হয়। নিহত ওহেদুলের মাথায়, কপালে ও মুখে ইটের আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় মৌসুমীকে আটক করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের জন্য নিহতের লাশ ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হবে বলে জানান আবদুল মাবুদ।
এদিকে, কুমিল্লার চান্দিনায় সিএনজিচালিত অটোরিকশা চালকের ছুরিকাঘাতে মো. মাসুম বিল্লাহ (২৬) নামে এক যাত্রী খুন হয়েছে। এ সময় তার ভাই মাসুদ আলম ও চাচাতো ভাই আবু সাঈদ আহত হয়েছেন। গতকাল দুপুরে জেলার চান্দিনা উপজেলার মাইজখার গ্রামে এই ঘটনা ঘটে। নিহত মাসুম বিল্লাহ ওই গ্রামের ফজলুর রহমানের ছেলে। বিকাল পৌনে ৫টায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত পুলিশ ঘাতককে আটক করতে পারেনি। চান্দিনা থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নাসির উদ্দিন মৃধা জানান, সিএনজিচালিত অটোরিকশার ভাড়া নিয়ে সিএনজিচালক শাহ জালাল ও এক মহিলা যাত্রীর মধ্যে বাগবিতণ্ডার ঘটনা ঘটে। এ সময় প্রতিবাদ করেন একই গ্রামের সিএনজিযাত্রী মাসুম বিল্লাহ। পরে ওই সিএনজি চালক ক্ষিপ্ত হয়ে এলোপাতাড়ি মাসুমসহ আরও ৩ জনকে ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যান। আহত মাসুমকে হাসপাতালে নেওয়ার পথে তার মৃত্যু হয়। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করেছে। বিকালে এ বিষয়ে থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করা হয়।
অন্যদিকে, হবিগঞ্জের আজমিরীগঞ্জে রাস্তা নিয়ে বিরোধের জের ধরে ভাতিজার লাঠির আঘাতে চাচা খুন হয়েছেন। গতকাল বিকেল ৫টায় উপজেলার বংশিবপাশার হুকুড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ নিহতের লাশ উদ্ধার করেছে। পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, ওই গ্রামের বাসিন্দা লুকমান মিয়ার সাথে বাড়ির চলাচলের রাস্তা নিয়ে তার ভাতিজা মোর্শেদ মিয়ার বিরোধ চলছিল। এ নিয়ে বিকেলে তাদের মাঝে বাগবিতণ্ডা হয়। একপর্যায়ে মোর্শেদ ক্ষিপ্ত হয়ে হাতে থাকা লাঠি দিয়ে চাচা লুকমান মিয়াকে আঘাত করে। এতে তিনি ঘটনাস্থলেই মারা যান। খবর পেয়ে শিবপাশা ফাঁড়ির এএসআই বিল্লাল ঘটনাস্থলে পৌঁছে তার লাশ উদ্ধার করেন। ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন আজমিরীগঞ্জ থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) অহিদুর রহমান।


বাংলাদেশ'র অন্যান্য খবর

©সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি