ইভিএম যাচাই: ইসির সঙ্গে বিএনপিসহ ১৩ দলের বৈঠক মঙ্গলবার

0
5

নিজস্ব প্রতিবেদক

ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) যাচাই করতে মঙ্গলবার (২১ জুন) বিএনপিসহ ১৩ রাজনৈতিক দলকে আমন্ত্রণ জানিয়েছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। নির্বাচন ভবনে এদিন বিকেল ৩টায় বৈঠকটি অনুষ্ঠিত হবে।

বৈঠকে দলগুলো তাদের কারিগরি বিশেষজ্ঞসহ চার সদস্যের প্রতিনিধি দল পাঠাতে পারবে। ইসি যুগ্ম সচিব এসএম আসাদুজ্জামান এসব তথ্য নিশ্চিত করেন।

বিএনপিসহ ২১ জুন ইসির আমন্ত্রণ পেল যারা-
জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জেএসডি, বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলন, ন্যাশনাল পিপলস পার্টি-এনপিপি, জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশ, ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশ, বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টি, ইসলামী ঐক্যজোট, বাংলাদেশ খেলাফত মজলিস, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ, বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্ট, খেলাফত মজলিস ও বাংলাদেশ মুসলিম লীগ-বিএমএল।

এ দুলগুলো বাদে আগামী ২৮ জুনও কয়েকটি দল ইসিতে যাওয়ার আমন্ত্রণ পেয়েছে। দলগুলো হলো- আওয়ামী লীগ, বাংলাদেশ তরিকত ফেডারেশন, বাংলাদেশের সাম্যবাদী দল-এমএল, বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি, লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টি-এলডিপি, গণতন্ত্রী পার্টি, বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি, বিকল্প ধারা বাংলাদেশ, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জাসদ, বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল-বাসদ, বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি-বাংলাদেশ ন্যাপ, বাংলাদেশের বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টি ও বাংলাদেশ সাংস্কৃতিক মুক্তি-জোট।

এর আগে রোববার (১৯ জুন) জাতীয় পার্টি (জাপা), জাতীয় পার্টি (জেপি), কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ, বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি, বাংলাদেশ জাতীয় পার্টি (বিজেপি), জাকের পার্টি, বাংলাদেশ মুসলিম লীগ, গণফোরাম, গণফ্রন্ট, বাংলাদেশ জাতীয় পার্টি, বাংলাদেশ ন্যাশনালিস্ট ফ্রন্ট-বিএনএফ, জাতীয়তাবাদী গণতান্ত্রিক আন্দোলন এনডিএম ও বাংলাদেশ কংগ্রেসকে বৈঠকে বসতে আমন্ত্রণ জানায় ইসি। অন্যান্য দল অংশ নিলেও বাংলাদেশ জাতীয় পার্টি, কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ ও গণফোরাম বৈঠকে অংশ নেয়নি। জাপা বলেছে, সংসদ নির্বাচনে ইভিএমের ব্যবহার চায় না।

এর আগে ইভিএম নিয়ে দেশ সেরা প্রযুক্তিবিদদের সঙ্গে বৈঠক করে ইসি। বৈঠকে বিশেষজ্ঞদের মতামত নেওয়া হয়। ইভিএম দেখার এ মেশিন নির্ভরযোগ্য বলে মতামত দেন বিশেষজ্ঞরা।

আগামী দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বড় আকারে ইভিএম ব্যবহার করতে চায় নির্বাচন কমিশন। তবে তার আগে সবার মতামত নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কমিশন। ইসির হাতে বর্তমানে ১ লাখ ৫৪ হাজার ইভিএম রয়েছে। এসব মেশিন দিয়ে সর্বোচ্চ ১০০ আসনে ভোট করা যাবে। ৩০০ আসনে এই ভোট-যন্ত্র ব্যবহার করতে হলে আরও তিন লাখের মতো মেশিনের প্রয়োজন বলে জানা গেছে।

মন্তব্য

দয়া করে আপনার মন্তব্য লিখুন
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন